সোমবার, ১৯ অগাস্ট ২০১৯, ১০:৪৬ অপরাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম:
বেড়ায় তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে প্রতিপক্ষের প্রতিষ্ঠানে ভাংচুর লুটপাট,আহত দুই রূপসায় ডেঙ্গুতে আক্তান্ত হয়ে কাঁচামাল ব্যবসায়ীর মৃত্যু সাঁথিয়ায় ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে জখম করে টাকা ছিনতাই জামালপুরে শীর্ষ জঙ্গি জেএমবি প্রধান শায়খ আব্দুর রহমানের বন্ধ মাদ্রাসা চালু করতে তৎপরতা শুরু চট্টগ্রামে ধর্ষণের অভিযোগে ভন্ড পীর গ্রেপ্তার কেশবপুরে ডেঙ্গু প্রতিরোধে পৌর মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত সাপাহারে ইয়াবাসহ যুবক আটক ঝালকাঠিতে পিতা হত্যার দায়ে পুত্রের মৃত্যুদন্ডাদেশ জামালপুরে ডেঙ্গু জ্বরে ২৪ ঘন্টায় ২ রোগির মৃত্যু আগামী দুই বছরের মধ্যেই অর্থনৈতিক মন্দার কবলে পড়বে যুক্তরাষ্ট্র খুলনায় আধুনিক কৃষি বিপ্লব! গুটি কলম পদ্ধতিতে পেঁপে চাষে নতুন দিগন্ত পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষায় বৃক্ষরোপনের বিকল্প নেই ডিমলায় নোংরা ও দুর্গন্ধ পরিবেশ সৃষ্টি করায় তিন ব্যবসায়ীকে জরিমানা ঝালকাঠিতে অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে গৃহপরিচালিকাকে ধর্ষন অভিযোগে মামলা ঝালকাঠি কাঁঠালিয়ায় পালিত সাপের দংশনে সাপুড়ের মৃত্যু  কুমিল্লায় অসুস্থ স্ত্রীকে নিয়ে হাসপাতালে নাজেহাল নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নবীগঞ্জে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ অনুষ্ঠিত ঝালকাঠি রাজাপুরে দুঃস্থদের মাঝে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলের চিকিৎসা সহায়তার চেক বিতরণ হাটহাজারী ফটিকা শাহজালাল পাড়ায় এলাকাবাসীর উদ্যোগে ইভটিজিং ও মাদক বিরোধী সমাবেশ অনুষ্ঠিত নওগাঁর সাপাহারে পুকুরের পানিতে পড়ে শিশুর মৃত্যু
পবিত্র ঈদুল-আযহাকে সামনে রেখে; হাপরে আগুনের তাপে

পবিত্র ঈদুল-আযহাকে সামনে রেখে; হাপরে আগুনের তাপে ঘামছে কামারের শরীর

ফাইল ছবি

মোঃ ফাহাদ আহমদ, মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধিঃ পবিত্র ঈদুল-আযহাকে সামনে রেখে ব্যস্থ সময় কাটাচ্ছেন কামাররা। নিশ্বাস ফেলবারও সময় নেই তাদের। দিন-রাত টুং টাং শব্দ ভাসছে কামারপাড়ায়। আজকের দিন পেরিয়ে ১দিন পরই ১২ আগষ্ট আগামী সোমবার মুসলমানদের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব পবিত্র ঈদুল-আযহা। কোরবানির পশু জবাই ও মাংস টুকরো করার জন্য দা, কাটারী, ছুরি, চাপাতি অপরিহার্য। আর এসব চাহিদা মিটানোর জন্য দা, বঁটি, কাটারী, ছুরি ও চাপাতিসহ প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি নিরোলস ভাবে তৈরি করে যাচ্ছে কামার শ্রমিকরা। সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে কামারপাড়ায় হাপরে আগুনের তাপে ঘাম ঝরছে কামারের শরীর। ইস্পাত কঠিন হাত দুটি আঘাত করছে লোহার বস্তুতে। শক্ত আঘাতে বদলে যাচ্ছে লোহার ধরন। তৈরি হচ্ছে কোরবানির গোশত/মাংস কাটার অস্ত্র। কামারপাড়ার এ দৃশ্য নতুন নয়। তবে কোরবানির ঈদকে ঘিরেই বাড়ে তাদের এ কর্মব্যস্ততা। কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে বঁটি, ছুরি, কাটারি, দা, বেকি, ফলাসহ বিভিন্ন সরঞ্জাম বানাচ্ছে কামাররা। এসব ব্যবহার্য জিনিস স্থানীয় চাহিদা মিটানোর পাশাপাশি উপজেলা শহরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে নিয়ে যাচ্ছে পাইকারী ব্যবসায়ীরা। কিন্তু বর্তমানে আধুনিক যন্ত্রাংশের প্রভাবে কামার-শিল্পের দুর্দিন চললেও আসন্ন পবিত্র ঈদুল-আযহাকে সামনে রেখে জমে উঠেছে ঐতিহ্যবাহী এ শিল্প। হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ, মৌলভীবাজার, ওসমানীনগর সিলেট তিনটি জেলার মিলনস্থল ঘুরে শেরপুর বাজারের কাজল কর্মকার জানান, এক সময় কামারদের যে কদর ছিল বর্তমানে তা আর নেই। মেশিনের সাহায্যে বর্তমানে আধুনিক যন্ত্রপাতি তৈরি হচ্ছে ফলে আমাদের তৈরি যন্ত্রাদির প্রতি মানুষ আকৃষ্ট হারাচ্ছে। হয়তো বা এক সময় এই পেশা আর থাকবেনা। তিনি আরো বলেন, গোশত কাটা বা চামড়া ছড়ানোর ছোট-বড় ৮ থেকে ১০ ধরনের ছুরি-চাপাতি চাকু তৈরি করেন। বিভিন্ন প্রকারভেদে ৫০ টাকা থেকে শুরু করে হাজার টাকা পর্যন্ত বিক্রি করা হয়। এছাড়াও বঁটি-দা ১২০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ১২০০ থেকে ১৪০০ টাকা দামে বিক্রি হয়। পশু জবাইয়ের মাঝারি ছুরি ২৫০ থেকে ৬৫০ টাকা, বড় ছুরি ৫০০ থেকে ১,০০০ টাকাও বিক্রি করেন তারা। সরকার বাজার ঘুরে সজল কর্মকার বলেন, আমার বাপ-দাদার মূল পেশা ছিল এটা। তাদের পেশার সূত্র ধরে আমার জীবনেরও শেষ মূহুর্তে এই পেশা ধরে রেখেছি। সারাদিন চাকু, বঁটি, কাটারী তৈরি করে যা আয় হয়, তা দিয়েই পরিবার-পরিজন নিয়ে খেয়ে পড়ে বেঁচে আছি। কেননা আর্থিক স্বচ্ছলতা না থাকায় আমার এই পেশা ছেড়ে অন্য কোন ভাল পেশায় যাওয়ার সুযোগ নেই। সারা বছর তেমন কোন কাজ না হলেও পবিত্র কোরবানির ঈদ আসলে আমাদের ভাল কাজ হয়, যা দিয়ে সারা বছর চলার জন্য কিছু আয় জমিয়ে রাখি।তিনি আরও বলেন, এই পেশায় আমরা যারা আছি খুবই অবহেলিত। এই পেশায় সংসার চালাতে হিমসিম খেতে হয়। কোরবানি ঈদ আসলে কিছু টাকা আয় করতে পারি। তবে সরকারি ভাবে এবং এনজিওর মাধ্যমে কামাদেরকে সুদ মুক্ত ঋণ দিলে পাইকারি মূল্যে উপকরণ কিনতে পারলে অবশ্যই এই দেশীয় কামার শিল্প পূর্বের ন্যায় ঘুরে দাঁড়াবে। সচেতন মহল মনে করেন, কামার শিল্পীদের সরকারী ভাবে কিছু আর্থিক সহযোগীতা প্রদান করা দরকার তা না হলে হয়ত এ শিল্প একদিন হারিয়ে যাবে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2019 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY sdsubrata.info
Translate »