সোমবার, ২২ Jul ২০১৯, ০১:১৬ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম:
মৌলভীবাজারে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনির স্বীকার একজন কেশবপুরের মজিদপুর ইউপির চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের পথসভা অনুষ্ঠিত কেশবপুরে মৎস্য চাষ বিষয়ক কুইজ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত কেশবপুরে ভারত-বাংলাদেশ মৈত্রী হাসাপাতালের উদ্বোধন ভোক্তা অধিকার কর্তৃক অভিযান দুটি প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা জলঢাকা উপজেলার টেংগনমারী ক্লাস্টারের প্রধান শিক্ষকগণের সঙ্গে সাঁথিয়ায় ছেলেধরা গুজবে আতংক ৭ম শ্রেণির ছাত্রকে গলাকেটে নেয়ার চেষ্টা বেড়ায় অবৈধভাবে বালু উত্তোলনের দায়ে এক লক্ষ টাকা জরিমানা নরসিংদীতে মরিয়ম হত্যার বিচার দাবীতে মানবন্ধন নরসিংদীতে জেলা উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির মাসিক সভায় পুলিশ সুপারকে বিদায় জানালেন জেলা প্রশাসক ফাইনাল খেলার পূর্বমূহুর্তে বাদ দেওয়ার প্রতিবাদে ঠাকুরগাঁওয়ে বাফুফে’র বিরুদ্ধে মানববন্ধন চট্টগ্রামের অপেক্ষমাণ আবাসিক গ্যাস সংযোগ না দেওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে নৌকাডুবি ও যাত্রী ভাড়া! পাটগ্রামে বন্যায় ভাঙ্গা সেতুর সংযোগে সাঁকো দাবি জলঢাকায় সেতু না থাকায় দূর্ভোগে হাজারো ও মানুষ মানুষের সৎ কর্ম মানুষকে অনন্তকাল মানুষের মনের মনি কোঠায় বাচিয়ে রাখে যশোরে নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসার আল ইসলামের দুই সদস্য আটক সমাজকল্যাণ প্রতিমন্ত্রী ফুলপুরে বন্যাদুর্গতদের মাঝে খাদ্য ও ত্রাণ বিতরন প্রতিবন্ধী রিকশা চালক চুরি করার জন্য ঘরের পেছনে ভর দুপুরে ঘুরা-ঘুরি কুশিয়ারা নদীর বাঁধ নির্মান ও নদী খনন প্রকল্প হতে নেয়া হয়েছে; পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক ঠাকুরগাঁওয়ে রান্না করা মাংসে “আল্লাহু” লেখা
সুন্দরগঞ্জে ব্যক্তিগত জমিতে স্কুল ঘর নির্মাণের অভিযোগ

সুন্দরগঞ্জে ব্যক্তিগত জমিতে স্কুল ঘর নির্মাণের অভিযোগ

ফাইল ছবি

সুন্দরগঞ্জ প্রতিনিনিঃ গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার বেলকা ইউনিয়নের শ্যামলায়েরপাঠ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় নামীয় জমিতে ঘর নির্মাণ না করে অন্যের ব্যক্তিগত জমিতে স্কুল ঘর নির্মাণের অভিযোগ উঠেছে। জানা গেছে, তালুক বেলকা গ্রামের স্থানীয় প্রভাবশালী ও জমিদাতা আকবর আলীসহ তার শরীকরা ৭৩৭ দাগের ৩৩ শতক জমি বিদ্যালয়ের নামে দান করে। দীর্ঘদিন থেকে বিদ্যালয়টির কার্যক্রম ওই জমিতে পরিচালিত হয়ে আসছে। বর্তমানে সরকারিভাবে বিদ্যালয়টির নামে শ্রেণিকক্ষ নির্মাণের বরাদ্দ পায়। এমতাবস্থায় ৭৩৭ দাগে ঘর উত্তোলন না করে ৭৩০ দাগে ঘর উত্তোলন করছে। অভিযোগকারি সাহাব উদ্দিন জানান, জমিদাতা প্রভাবশালী হওয়ায় ঘর উত্তোলনে বাঁধা দেয়ার পরও জোর পূর্বক ঘর উত্তোলন করছে। এনিয়ে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ করা হয়েছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আলমগীর সরকার জানান, পূর্বের জায়গায় ঘর উত্তোলন করা হচ্ছে। জমিদাতারা বলেছেন, ওই জায়গাটি তারা স্কুলের নামে দান করেছে। অভিযোগের কোন কারণ আমার জানা নাই। জমিদাতা আকবর আলী জানান, বিদ্যালয় নামীয় জমিতেই ঘর উত্তোলন হচ্ছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সোলেমান আলী জানান, ব্যস্ততার কারণে এই মহুত্বে তদন্ত করা সম্ভব হচ্ছে না।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2019 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY sdsubrata.info
Translate »