শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৩:২৪ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম:
সাটুরিয়ার দরগ্রাম স্কুলের মাঠ পরিষ্কার করতে গিয়ে শিক্ষার্থীবৃন্দ অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি নবীগঞ্জে বিপুল পরিমাণ অতিথি পাখিসহ আটক ৫ ঝালকাঠিতে দপ্তরীর বিরুদ্ধে ৫ম শ্রেনীর ছাত্রীকে শীলতাহানি চেষ্টার অভিযোগ নরসিংদীতে চা ল্যকর মাদ্রাসার ছাত্র হত্যার মামলার রহস্য উদঘাটন করলেন ১৬৪ ধারা জবান বন্দী দিলেন আদালত  গোলনা কালীর ডাংঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সরকারের টাকা লুট তারাজ বেড়ায় অসংক্রামক রোগ ও প্রবীণের স্বাস্থ্য বিষয়ে কর্মশালা অনুষ্ঠিত সোনাগাজীতে চায়ের সাথে গুমের ঔষধ মিশিয়ে ধর্ষন,ধর্ষকের সহযোগী মহিলাসহ আটক- ২ জাবি উপাচার্যের পদত্যাগ দাবি ইসলামপুর এএসপি সার্কেলের নেতৃত্বে জঙ্গিবাদ,মাদক ও ইভটিজিংয়ের বিরুদ্ধে প্রচারণা আশুলিয়া থানার এস আই রিকশা চালক সেজে অভিযানকালে দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত কার্পাসডাঙ্গা পুলিশ ফাঁড়ির মাদক বিরোধী অভিযানে ১০৫ বোতল ফেন্সিডিলসহ আটক-২ মানিকগঞ্জে ইয়াবা সুন্দরী সাইদা মনিসহ দুই সহযোগী গ্রেপ্তার রাজাপুরে চিকিৎসকের অভাবে প্রয়োজনীয় সেবা থেকে বঞ্চিত উপজেলাবাসী ঝালকাঠিতে নদী ভাঙ্গনের কবলে দোকনঘর নদীগর্ভে ফেরি গ্যাংওয়ে অচল নরসিংদীতে ঢাকা-সিলেট মহা সড়ক দখল এখন ময়লার আর্বজনায়-চরম র্দুভোগ পথচারী মানুষদের ডিমলায় বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে সংবেদনশীলতা বৃদ্ধি বিষয়ক কর্মশালা ফুটপাত দখলমুক্তে ডিএনসিসির অভিযান জলঢাকায় বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা ফুটবলে কাজিরহাট পন্থাপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন সোনারগাঁয়ে আল্লামা আহমদ শফী বলেন, দাওরা হাদিসকে মাস্টার্সের মর্যাদা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী: সাপাহারে নতুন অর্থনৈতিক অঞ্চলের নীতিগত অনুমোদন দিয়েছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা
সোনারগাঁয়ে ভূল চিকিৎসায় গর্ভবতী মায়ের মৃত্যু, স্বজনরা

সোনারগাঁয়ে ভূল চিকিৎসায় গর্ভবতী মায়ের মৃত্যু, স্বজনরা ক্লিনিক ভাংচুর

ফাইল ছবি

সোনারগাঁ থেকে, মোঃ ফয়সাল: নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের ভুল চিকিৎসায় আমান্তিকা নামের এক রোগীর মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এতে সোনারগাঁ জেনারেল হাসপাতাল (ক্লিনিক) ভাংচুর করেছে বিক্ষুব্ধ স্বজনরা। ৯ সেপ্টেম্বর সোমবার দুপুরে মোগরাপাড়া চৌরাস্তা এলাকায় সোনারগাঁ জেনারেল হাসপাতাল নামের একটি ক্লিনিকে এ ঘটনা ঘটে। আমান্তিকার স্বজনরা ক্লিনিকের পরীক্ষাগার, মেশিনপত্র, গ্লাস, দরজা জানালাসহ বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাংচুর করে। ঘটনার পর ওই ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ পালিয়ে যায়।খবর পেয়ে সোনারগাঁ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বিক্ষুদ্ধ স্বজনদের বিচারের আশ্বাসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আসে।নিহত আমান্তিকার স্বামী মোঃ পিন্টু মিয়া বাদীতে সোনারগাঁ থানায় মামলা দায়েরর প্রস্তুতি চলছে। সোনারগাঁ জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে কাউকে পাওয়া যায়নি। জানা যায়, উপজেলার মোগরাপাড়া ইউনিয়নের বড় সাদিপুর গ্রামের পিন্টু মিয়ার স্ত্রী আমান্তিকা গর্ভবতী হলে সিজার নিয়মিত চিকিৎসার জন্য গত শুক্রবার বিকেলে মোগরাপাড়া চৌরাস্তা এলাকায় সোনারগাঁ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। সোনারগাঁ জেনারেল ক্লিনিকের চিকিৎসক ডা. নূরজাহান বেগম ওইদিন রোগীকে সিজার করার পরামর্শ দেন এবং নিজেই বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে তার সিজার করেন। এসময় আমান্তিকার একটি কন্যা সন্তান জন্ম নেয়। তাড়াহুড়া করে সিজারের পর ওই রোগীর পেটে গজ কাপড় (ব্যান্ডেজ) রেখেই ডা. নূরজাহান কাটা স্থান সেলাই করে দেয়। সিজারের পর আমান্তিকা অবিরত বমি ও পেটে অস্বস্থি হয়ে পেট ফুলে যায়। পুনরায় ডাক্তারের কাছে নিয়ে আসলে সে নারায়ণগঞ্জ কেয়ার হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দেয়। ডাক্তার নূরজাহান কেয়ার হাসপাতালে গিয়ে পুনরায় ওই রোগীর সিজার করিয়ে জরায়ু কেটে ফেলেন। রোগীর অবস্থার অবনতি হলে কেয়ার হাসপাতাল থেকে তাকে ঢাকার গেন্ডারিয়া আজগর আলী হাসপাতালে প্রেরণ করা হওয়ার পর সোমবার ভোরে সে মৃত্যু বরণ করে। এঘটনায় রোগীর স্বজনরা বিক্ষুদ্ধ হয়ে দুপুরে সোনারগাঁ জেনারেল হাসপাতালে এসে ক্লিনিকের পরীক্ষাগার, মেশিনপত্র, গ্লাস ও দরজা জানালাসহ বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাংচুর করে। আমান্তিকার মৃত্যুর খবর পেয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পালিয়ে যায়।সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নিহত আমান্তিকার লাশ একটি এম্বুলেন্সে করে নিয়ে আসে সোনারগাঁ জেনারেল হাসপাতালের সামনে। এসময় রোগীর বিক্ষুদ্ধ স্বজনরা ক্লিনিকে গিয়ে হাসপাতালের পরীক্ষাগার, মেশিনপত্র, গ্লাস ও দরজা জানালাসহ বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাংচুর করে। নিহত আমান্তিকার স্বামী মোঃ পিন্টু মিয়া জানান, বন্দর উপজেলার কল্যাণদী গ্রামের সোহেল মিয়ার মেয়ে আমান্তিকার সাথে ২০১৮ সালের ৩রা আগষ্ট তার বিয়ে হয়। বিয়ের এক বছরের মাথায় ডাক্তারের ভূল চিকিৎসার জন্য তার স্ত্রীকে হারাতে হয়েছে। তিনদিনের মাথায় তার কন্যা সন্তান এতিম হয়েছে। এ হত্যাকান্ডের বিচার দাবী করে দোষী ডাক্তারকে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় এনে শাস্তি দাবী করেন তিনি। নিহতের বাবা সোহেল মিয়া জানান, শুক্রবার আমার মেয়েকে সোনারগাঁ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসার পর ডাক্তার সিজার করার পরামর্শ দেন। জরুরি সিজার না করলে মা ও পেটের সন্তান মারা যাবে বলে জানিয়েছেন। ডাক্তারের কথা অনুযায়ী আমরা সিজারের সিদ্ধান্ত নেই। ওইদিন ডাক্তার নূরজাহান আরো ৪টি সিজার করেছেন,পাশাপাশি রোগীর দীর্ঘ লাইন। ডাক্তার তাড়াহুড়া করে সিজারের পর পেটে গজ কাপড় রেখে সেলাই করায় আমার মেয়ের মৃত্যু হয়। আমি আমার মেয়ের হত্যাকারীকে গ্রেফতার করে বিচার দাবী করছি।সোনারগাঁ থানার ওসি মনিরুজ্জামান বলেন, ভুল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যুর ঘটনায় হাসপাতাল ভাংচুর হয়েছে। বিক্ষুদ্ধ স্বজনদের পুলিশ বিচারের আশ্বাস দিলে পরিস্থিতি শান্ত হয়। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..

এ জাতীয় আরো খবর পড়ুন

All rights reserved © 2019 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY sdsubrata.info
Translate »