বুধবার, ২৬ Jun ২০১৯, ১২:০৬ পূর্বাহ্ন

সর্বশেষ সংবাদ শিরোনাম:
ঝালকাঠির কন্যা পরমা সাঁথিয়ায় সাড়ে ৩ বছরের শিশুকে শ্বাসরোধ করে হত্যা সাটুরিয়ায় মৎস্য চাষিদের অভিজ্ঞতা বিনিময় ও কর্মশালা অনুষ্ঠিত যশোরের মণিরামপুরে কর্মসূচির তালিকায় মেম্বরের স্বামী ও বিত্তবানদের নাম সাংবাদিকের সাথে পুলিশের অশোভনীয় আচরনের নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে সাংবাদিক সংগঠন মানিকগঞ্জের জাসদের সভাপতি ইকবাল আর নেই যশোরের উলাশী নীলকুঠি পার্কে বোমা বিষ্ফোরন, ৩ জন আহত মানিকগঞ্জে চাঁদাবাজি বন্ধে প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও ধর্মঘট জলঢাকায় ধর্মপাল ইউনিয়নের উন্মুক্ত বাজেট ঘোষণা কেশবপুরের গৌরীঘোনা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কর্মী সমাবেশ অনুষ্ঠিত মজিদপুর ইউপির চেয়ারম্যান পদে উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী নরসিংদীতে ট্রেনে কাটা পড়ে স্কুল পড়–য়া ছাত্র রাজিব মিয়া নিহত যশোর কোতয়ালী থানার পাস থেকে ৩৯১ বোতল ফেনসিডিলসহ আটক-২ সুন্দরগঞ্জে ব্যক্তিগত জমিতে স্কুল ঘর নির্মাণের অভিযোগ পহেলা জুলাই সোমবার সকাল ১০ টায় কেজিডিসিএল অফিসের সামনে অবস্থান কর্মসূচি নওয়াপাড়া পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডেরউপ-নির্বাচন সম্পন্ন সোনাগাজী প্রেসক্লাব নির্বাচন, সভাপতি মনির -সম্পাদক হানিফ যশোর কোতোয়ালি থানার ওসি অপূর্ব হাসান স্ট্যান্ডরিলিজ রং নাম্বারে প্রেম-প্রেমের দাওয়াতে পার্লারের আড়ালে দেহ ব্যবসার অভিযোগ বাকেরগঞ্জে উপজেলা ইসলামী যুব সম্মেলন অনুষ্ঠিত
হেযবুতের তওহীদ সেলিমের বিরুদ্ধে ইসলামকে বিকৃত করার

হেযবুতের তওহীদ সেলিমের বিরুদ্ধে ইসলামকে বিকৃত করার অভিযোগ

ফাইল ছবি

গর্জন ডেস্কঃ ১৯৯৫ সালে মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নী হেযবুত তাওহীদ প্রতিষ্ঠা করেন। হেযবুত তওহীদের সর্বোচ্চ নেতাকে ‘এমাম’ হিসেবে অভিহিত করা হয়। ২০১২ সালে মোহাম্মদ বায়াজীদ খান পন্নীর মৃত্যুর পর নোয়াখালী জেলার হোসাইন মোহাম্মদ সেলিম সংগঠনটির দায়িত্ব গ্রহণ করেন। হোসাইন মোহাম্মদ সেলিম ২৮ নভেম্বর, ১৯৭২ সালে নোয়াখালী জেলার সোনাইমুড়ি থানার পোরকরা গ্রামের এক অতি সাধারণ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা জনাব নুরুল হক এবং মাতা হোসনে-আরা বেগম। তিনি স্থানীয় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে প্রাথমিক শিক্ষা শেষ করার পর পার্শ্ববর্তী বিপুলাসার আহম্মদ উল্লাহ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৯৮৯ সালে এস.এস.সি পাশ করেন। লাকসাম নওয়াব ফয়জুন্নেছা সরকারি কলেজ থেকে ১৯৯১ সালে এইচ.এস.সি এবং একই কলেজ থেকে ১৯৯৩ ইং সালে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে স্নাতক পাশ করেন। তিনি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৯৬-৯৭ শিক্ষাবর্ষে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী অর্জন করেন। স্কুল জীবনেই তিনি শিবিরের রাজনীতিতে জড়িয়ে পড়েন। স্থানীয়ভাবে সোনাইমুড়ীতে শিবিরের দায়িত্বও পালন করেন। স্নাতক পড়াকালীন তার বিরুদ্ধে সংগঠনবিরোধী তৎপরতার অভিযোগ এনে বহিষ্কার করে শিবির। এরপর ১৯৯৯ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে টাঙ্গাইলে হিযবুত তাওহীদের প্রতিষ্ঠাতা পন্নীর সংস্পর্শে আসেন। কিছুদিনের মধ্যেই তিনি পন্নীর স্নেহের পাত্রে পরিণত হন এবং সার্বক্ষণিক সঙ্গী হয়ে ওঠেন। প্রতিদান হিসেবে পন্নী তাকে প্রধান সহযোগীর দায়িত্ব দেন। ২০১২ সালের ১৬ জানুয়ারি পন্নীর মৃত্যুর পর হেযবুত তওহীদের এমামের দায়িত্ব পান। সেলিমের মতে, “হেযবুত তওহীদ সরাসরি পরিচালনা করেন মহান আল্লাহ। হেযবুত তাওহীদের ওয়েবসাইটে বলা হয়ে, “সময়ের প্রয়োজনে মহান আল্লাহ হেযবুত তওহীদের মাননীয় এমাম জনাব হোসাইন মোহাম্মদ সেলিমকে গত সাড়ে তিন বছরে অনেক নতুন নতুন উপলব্ধি দান করেছেন। কখনো স্বপ্নের মাধ্যমে, কখনো আল্লাহর সৃষ্টিকে অবলোকন করে, কখনো চিন্তা-ভাবনা করে কখনো বা অবচেতন মনেই তিনি উপলব্ধিগুলি করেছেন। যদিও হেযবুত তওহীদ জঙ্গিবাদ, সাম্প্রদায়িকতা এবং অপ-রাজনীতির বিরুদ্ধে জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে কাজ করছে বলে নিজেদের অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে বিবৃত দিয়েছে কিন্তু বিভিন্ন সময় এই দলের কর্মসূচি প্রশ্নবিদ্ধ হয়। ২০০৮ সালে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তালিকায় কালো তালিকাভুক্ত হয় সংগঠনটি। ২০১৪ সালের ১৩ নভেম্বর বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে সংগঠনটিকে কালো তালিকাভুক্ত করে চিঠি জারি করা হয়। বাংলাদেশ ব্যাংকও এ বিষয়ক সতর্কতা জারি করে সংগঠন ও এর অঙ্গ সংগঠনের সম্পর্কে সতর্ক থাকতে বলে। বিভিন্ন সময় সংগঠনটি নিষিদ্ধ করার কথাও বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে জানা যায়। মোহাম্মদ সেলিমের বিরুদ্ধে ইসলাম মূল ৫ স্তম্ভ ঈমান, নামাজ, রোজা, হজ, যাকাতকে বিকৃত করার অভিযোগ রয়েছে। বর্তমানে সংগঠনটি তাদের প্রচারে কাজে নারীদেরকে ব্যাপকহারে ব্যবহার করছে। সুত্র: চেঞ্জ টিভি.প্রেস,

দয়া করে নিউজটি শেয়ার এবং লাইক করুন..
visitor counter
All rights reserved © 2019 দেশের গর্জন | Desher Garjan
Design & Developed BY sdsubrata.info
Translate »